প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

তানভীন আহমেদ ফাহাদ

ডেস্ক এডিটর, বিডি২৪লাইভ

খালেদাকে ‘কারাগারের রোজনামচা’ পড়তে বললেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২২:৪০:২৪

ছবি : ফাইল ফটো

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বকশীবাজার আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ আদালতের বিচারক ড. মো: আখতারুজ্জামান পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন। রায়ের পরপরই বেগম খালেদা জিয়াকে নাজিম উদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়। সেখানেই তিনি একমাত্র বন্দী হিসেবে আছেন।

এদিকে, কারাগারে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধুর ‘কারাগারের রোজনামচা’ বইটি পড়তে বললেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন।

সমাজকল্যাণমন্ত্রী বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার কাছে বঙ্গবন্ধুর ‘কারাগারের রোজনামচা’ পাঠানো উচিত। তাহলে তিনি বুঝতে পারবেন রাজনীতি ও কারাগারের পরিস্থিতি তখন কেমন ছিল।

শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে আওয়ামী বাস্তুহারা লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় রাশেদ খান মেনন এ কথা বলেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে থেকে গৃহকর্মী নিয়ে ‘বাসার সুবিধা’ ভোগ করছেন এমন মন্তব্য করে রাশেদ খান মেনন বলেন, কারাগারে রাজনীতিবিদরা যেভাবে থাকেন, সে তুলনায় তিনি প্রথম দিন থেকেই কারাগারে রানির হালে আছেন।

মেনন বলেন, ‘কারাগারে কেউ বাইরে থেকে ব্যক্তিগত পরিচারিকা পান, তা আমার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে জানা নেই। আর কেউ যদি ডিভিশনের আবেদন না করেই ডিভিশন দেওয়া হয়নি বলে প্রচার পেতে চায়, তাহলে আর কিছুই বলার থাকে না। মূলত এসব কথা বলার আড়ালে বেগম খালেদা জিয়ার দুর্নীতিকেই আড়াল কারার চেষ্টা করা হচ্ছে।’

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন আরো বলেন, দুর্নীতি তো দুর্নীতিই। দুর্নীতির কোনো লঘু বা গুরুদণ্ড নেই। এ কারণে বেগম খালেদা জিয়ার সাজা নিয়ে মায়াকান্না করার কোনো অবকাশ নেই।

আগামী দিনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) ক্ষমতায় আসলে দেশের পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে উল্লেখ করে রাশেদ খান মেনন বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় এলে দেশে হত্যাযজ্ঞ চালাবে। কারণ সরকার বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এবং ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচারের মধ্য দিয়ে তাদের কলিজায় হাত দিয়েছে। এ কারণে তারা ক্ষমতায় ফিরলে দেশের পরিস্থিতি ভয়াবহ জায়গায় নিয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) বকশীবাজার আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ আদালতের বিচারক ড. মো: আখতারুজ্জামান বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন।

এছাড়াও একই মামলায় বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান ও বর্তমান বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান, সাবেক এমপি কাজী সলিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমানকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়। একইসাথে তাদের প্রত্যেককে ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা করে জরিমানা করেন আদালত।

বিডি২৪লাইভ/টিএএফ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: