সুমিত সরকার সুমন

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি

সুমাইয়াকে কু-প্রস্তাব, ভাইসহ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

১৪ জুলাই, ২০১৮ ১১:৪৩:২৯

ছবি: প্রতিনিধি

অবশেষে অনেক নাটকীয়তার পর আদালতের নির্দেশে শ্রীনগরের ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে শ্রীনগর থানায় পুলিশ মামলা রেকর্ড করেছে। উপজেলার পানিয়া গ্রামের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়াতে মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগর উপজেলার তন্তর ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে বাড়িঘর-ভাংচুর করার ঘটনায় সুমাইয়ার বাবা আলী হোসেন ঈদের দিন শ্রীনগর থানায় একটি অভিযোগ করেন।

প্রায় এক মাস পার হয়ে গেলেও রহস্য জনক কারণে শ্রীনগর থানা পুলিশ মামলাটি রেকর্ড করছিলেন না। পরবর্তীতে ভূক্তভোগী সুমাইয়ার মা ফুলমালা বেগম মুন্সীগঞ্জ আদালতে বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে একটি পিটিশন মামলা করেন। মামলা নং-২১০/২০১৮।

ঘটনার বিবরণে জানাযায়, ভূক্তভোগী অসহায় পরিবারের সদস্য আলী হোসেন এর মেয়ে ৮ম শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়াকে কু-প্রস্তাব দেয় তন্তর ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেনের ভাই মিনার। ছাত্রী সুমাইয়া কু-প্রস্তাবের বিষয়টি তার বাবা-মার কাছে জানায়। ইউপি চেয়ারম্যান জাকিরের ভাইয়ের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করাতে ক্ষিপ্ত হয়ে চেয়ারম্যান জাকিরের নেতৃত্বে পলাশ, নিঝু মল্লিন, ফারুক, বজলু, রকিব, হারুন, নাসিরসহ প্রায় ৫০/৬০ জনের একটি সংঘবদ্ধদল সন্ত্রাসী কায়দায় আলী হোসেনের বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। ঘরের ভিতরে থাকা ফ্রিজ, হাড়ি-পাতিলসহ বিভিন্ন আসবাব পত্র পুকুরে ফেলে দেয়।

যে কোন সময় পূনরায় সন্ত্রাসী বাহিনী অসহায় পরিবারের উপর সন্ত্রাসী হামলা চালাতে পারে এমন ভয়ে পরিবারটি নিকট আত্মীয়সহ বিভিন্ন স্থানে দীর্ঘ দিন ধরে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। ঘর-বাড়ি ছাড়া অসহায় পরিবারের ফুলমালা বেগম বলেন, আমার এক ছেলে ফাহাদ ও মেয়ে সুমাইয়া নওপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণিতে এবং আরেক ছেলে আহাদ ৭ম শ্রেণিতে লেখাপড়া করছেন। সন্ত্রাসী হামলার ভয়ে আমার ছেলে মেয়েরা স্কুলে যেতে পারছে না।

প্রতি মূহুর্তে আতংকে দিন পার করছেন বাড়ি ঘর ছাড়া অসহায় পরিবারটি। ভূক্তভোগী অসহায় পরিবারের সদস্য সুমাইয়ার মা ফুলমালা বেগম মুন্সীগঞ্জ আদালতে বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী ২০০৩) এর ১০/৩০ মামলা দায়ের করেন। ইংরেজি ১১/৭/২০১৮ তারিখে শ্রীনগর থানায় মামলাটি রেকর্ড করা হয়। যাহার মামলা নং-১৬।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও শ্রীনগর সার্কেল কাজী মাকসুদা লিমার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেনসহ আসামীদের গ্রেফতারের জন্য আমাদের কয়েকটি টিম কাজ করছে।

বিডি২৪লাইভ/এমআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: