মার্সেল ফ্রিজ কিনে গাড়ি পেলেন সবজি বিক্রেতা

২০ আগস্ট, ২০১৮ ১০:৩৮:০৫

ছবি: ইকরামুল সরদারের হাতে গাড়ির চাবি তুলে দিচ্ছেন খুলনার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, মার্সেলের সিনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর মিলটন আহমেদ, খুলনার এরিয়া ম্যানেজার ফিরোজের রহমান এবং রানা ইলেকট্রনিক্সের স্বত্ত্বাধিকারী মাসুদ রানা

জমে উঠেছে ‘মার্সেল ঈদ মেগা ডিজিটাল ক্যাম্পেইন’। কোরবানির ঈদের ঠিক আগ মুহূর্তে পড়েছে মার্সেল ফ্রিজ কেনার ধুম। বিশেষ করে ডিজিটাল ক্যাম্পেইনে নতুন গাড়িসহ অসংখ্য পণ্য ও নিশ্চিত ক্যাশব্যাক থাকায় ব্যাপক বিক্রি হচ্ছে মার্সেল ফ্রিজ, টিভি এবং এসি। এর আওতায় মার্সেল ফ্রিজ কিনে নতুন গাড়ি পেয়েছেন খুলনার রূপসার ইকরামুল সরদার। পেশায় সবজি বিক্রেতা ইকরামুল গাড়ি পেয়ে অভিভূত। তার পরিবারে বইছে আনন্দের বন্যা।

উল্লেখ্য, ‘ঈদ আনন্দে মাতামাতি, মার্সেল দিচ্ছে নতুন গাড়ি’ এই স্লোগান নিয়ে গত ২ জুলাই মার্সেল শুরু করে ‘ঈদ মেগা ডিজিটাল ক্যাম্পেইন’। এর আওতায় মার্সেল ফ্রিজ, টিভি ও এসি কিনে রেজিস্ট্রেশন করে ক্রেতারা পাচ্ছেন নতুন গাড়ি। আছে ফ্রিজ, টিভি, এসিও। এসব না মিললেও সব ক্রেতাই পাচ্ছেন নিশ্চিত ক্যাশব্যাক।

এর আগে মার্সেল ফ্রিজ কিনে নতুন গাড়ি পেয়েছিলেন মেহেরপুরের গৃহবধূ রোকসানা খাতুন। এবার গাড়ি পেলেন খুলনার ইকরামুল সরদার। তিনি গত ১৬ আগস্ট খুলনার বটিয়াঘাটার রানা ইলেকট্রনিক্স থেকে ২৪ হাজার ৫০০ টাকা দিয়ে সাড়ে ১২ সিএফটির একটি মার্সেল ফ্রিজ কিনে রেজিস্ট্রেশন করে গাড়িটি পান।

রোববার (১৯ আগস্ট) ইকরামুলের কাছে নতুন গাড়িটি হস্তান্তর করা হয়। তার হাতে গাড়ির চাবি তুলে দেন খুলনার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মার্সেলের সিনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর মিলটন আহমেদ, খুলনার এরিয়া ম্যানেজার ফিরোজের রহমান এবং রানা ইলেকট্রনিক্সের স্বত্ত্বাধিকারী মাসুদ রানা।

ইকরামুল সরদার জানান, তার বাড়ি রূপসা থানার জোয়ার গ্রামে। মা, স্ত্রী, এক ছেলে এবং এক মেয়ে নিয়ে তার ৫ সদস্যের পরিবার। তিনি খুলনা শহরে ফেরি করে সবজি বিক্রি করেন। বাড়িতে কোনো ফ্রিজ ছিল না। অনেক কষ্ট করে অল্প অল্প টাকা জমিয়ে ফ্রিজ কেনার পরিকল্পনা করেন। এজন্য তিনি বেছে নেন দেশিয় ব্র্যান্ড মার্সেলকে। কারণ মার্সেলের ফ্রিজ দেখতে যেমন সুন্দর, তেমনি মানে উন্নত আবার দামেও সাশ্রয়ী। এদিকে চলমান ডিজিটাল ক্যাম্পেইনে গাড়িসহ বিভিন্ন পণ্য পাওয়ার সুযোগ থাকায় ঈদের আগেই মার্সেলের ফ্রিজটি কেনেন তিনি।

গাড়ির চাবি নেয়ার সময় আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন ইকরামুল। তিনি বলেন, আমার অনেক আত্মীয় মার্সেল ফ্রিজ ব্যবহার করেন। তারা জানিয়েছে অনেক ভালো সার্ভিস পাচ্ছেন। এজন্য আমিও মার্সেল ফ্রিজ কিনলাম। আর কি ভাগ্য আমার! ফ্রিজ কিনে পেলাম নতুন গাড়ি। আমার মতো সবজি বিক্রেতার ঘরে লাখ লাখ টাকা দামের গাড়ি থাকবে তা কখনো কল্পনাও করি নাই। ক্রেতাদের জন্য এমন সুযোগ রাখায় মার্সেলকে ধন্যবাদ। এই গাড়ির মাধ্যমে আমাদের অনেক স্বপ্ন পূরণ হবে। মায়ের চিকিৎসা এবং ছেলে-মেয়ের লেখাপড়া করাতে পারবো।

মার্সেল সূত্রে জানা গেছে, গ্রাহক ডাটাবেজ তৈরির মাধ্যমে বিক্রয়োত্তর সেবা আরো সহজতর করতে দেশব্যাপী এই ডিজিটাল ক্যাম্পেইন চালাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। উদ্দেশ্য হলো অনলাইনের মাধ্যমে গ্রাহকদের দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা প্রদান। এই ক্যাম্পেইনে ক্রেতাদের অংশগ্রহণ উৎসাহিত করতে গাড়ি, ফ্রিজ, টিভি, এসি এবং নিশ্চিত ক্যাশব্যাকের ঘোষণা দেয় মার্সেল। এই সুবিধা থাকছে ঈদুল আযহা বা কোরবানির ঈদ পর্যন্ত।

বিডি২৪লাইভ/এএইচআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: