আরেফিন আল ইমরান

ডেস্ক কন্ট্রিবিউটর

স্ন্যাপচ্যাট সার্জারি, এক বিকৃতির সূত্রপাত

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৯:১০:০০

ছবিঃ সংগৃহীত

সেলিব্রিটিদের মত সুন্দর হতে চান অনেকে। এজন্য ফেস বা অন্যান্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সার্জারি করার মত মানুষের অভাব নেই পৃথিবীতে। তবে প্লাস্টিক সার্জারির চিন্তা-চেতনায় এবার শুরু হয়েছে নতুন একটি ধারা-স্ন্যাপচ্যাট সার্জারি। উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে এই অপারেশনটি।

মনোবিদরা বলছেন, ডিসমর্ফিক ডিসঅর্ডার থেকেই ‘ডিসমর্ফিক স্ন্যাপচ্যাট’ ধারনাটির উৎপত্তি। এটি মূলত এক ধরনের বিকৃত অভিরুচি। এটিতে আক্রান্ত মানুষরা নিজের সেলফি তুলে তা এডিট করেন ইচ্ছেমত। তারপর তাতে সংযোজন করেন স্ন্যাপচ্যাট। অনেকে আবার এই সংক্রান্ত অ্যাপসগুলোও ব্যবহার করে থাকেন যাতে করে হুবহু ছবির মতই মনে হয় নিজেকে।

কেউ কেউ তো স্ন্যাপচ্যাটে দেখানো শিং, লম্বা কান বা গোঁফও সংযোজন করতে বলেন ডাক্তারকে। টাকার জন্য সার্জনরাও অপারেশনের টেবিলে রেডি হয়ে যান রোগীদের প্রত্যাশা অনুযায়ী মুখশ্রী বদলাতে।

আসলে প্রযুক্তির যে কুফল রয়েছে, তা আমরা অনেক সময়েই ভুলে যাই। সৃষ্টিকর্তা আমাদের যে সুন্দর ও স্বাভাবিক শরীর ও সৌন্দর্য রয়েছে তার প্রকৃত মূল্যায়ণ আমরা করিনা। এই বিকৃতি থেকে বের হওয়ার জন্য প্রয়োজন সচেতনতা।

তাছাড়া কসমেটিকস বা প্লাস্টিক সার্জারি শরীরের জন্য ভীষন ক্ষতিকর। তাই নিজেও সচেতন হোন এবং অন্যদেরও সচেতন করুন স্ন্যাপচ্যাট সার্জারির মত বিকৃত মানসিকতা সম্পর্কে। সূত্র: অডিটিসেন্ট্রাল

বিডি২৪লাইভ/এএআই/ওয়াইএ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: