প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

‘আমাকে তার বেডরুমে নিয়ে যায়' অতপর...

১৪ অক্টোবর, ২০১৮ ১৩:৫৫:৫৪

ছবি: ইন্টারনেট

বলিউড সিনেমার খ্যাতিমান তারকাদের একের পর এক যৌন হেনস্থার কথা প্রকাশ করেন, ‘কেট শর্মা’। চলচ্চিত্র জগৎ মানে ঝলমলে পার্টি, তারকাখ্যাতি, বিলাসবহুল জীবনযাপন ইত্যাদি। কিন্তু এই জগতে নাম লেখাতে গিয়ে অন্ধকার দিকও দেখতে হয় অভিনয়শিল্পীদের। স্বজনপ্রীতি, কাস্টিং কাউচ থেকে শুরু করে নানা প্রতিকূল ঘটনার মুখোমুখি হতে হয় তাদের।

হলিউডের পর ‘হ্যাশট্যাগ মি টু’ আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে বলিউডের সেই অন্ধকার দিকটাই তুলে ধরতে শুরু করেছেন অভিনয়শিল্পীরা। কিছু দিন আগে অভিনেতা নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে শুটিং সেটে হেনস্তার অভিযোগ তোলেন অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। এরপর থেকে বলিপাড়ায় রীতিমতো ঝড় বইছে। কুৎসিত সব ঘটনার সঙ্গে প্রকাশ্যে আসছে বেশ কিছু বড় বড় নির্মাতা ও অভিনেতার নাম।

এবার বলিউডের খ্যাতনামা পরিচালক সুভাষ ঘাইয়ের বিরুদ্ধে হেনস্তার অভিযোগ তুললেন ভারতীয় টেলিভিশন অভিনেত্রী ও মডেল কেট শর্মা। শুধু তাই নয়, এই নির্মাতার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক চুম্বন ও আলিঙ্গন করায় থানায় হেনস্তার অভিযোগও দায়ের করেছেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে কেট শর্মা বলেছেন, ‘তিনি (সুভাষ ঘাই আমাকে ৬ আগস্ট তার বাড়িতে ডাকেন। তার বাড়িতে পাঁচ থেকে ছয়জন মানুষ ছিল, সবার সামনেই তিনি আমাকে ম্যাসাজ করতে বলেন। এতে আমি অবাক হয়ে যাই কিন্তু তার প্রতি সম্মানের কথা বিবেচনা করে আমি রাজি হই। দুই থেকে তিন মিনিট তাকে ম্যাসাজ করে আমি ওয়াসরুমে হাত ধুতে গেলে তিনিও আমার পিছু পিছু আসেন। এরপর কিছু কথা আছে বলে আমাকে তার বেডরুমে নিয়ে যান। তারপর তিনি আমাকে চুম্বন ও আলিঙ্গন করার চেষ্টা করেন। আমি সেখান থেকে চলে আসার অনুরোধ করলে তিনি হুমকি দেন-যদি আমি তার সঙ্গে রাতে না থাকি তবে তিনি আমাকে সিনেমায় নিবেন না।’

যদিও এ বিষয়ে মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে ৭৩ বছর বয়সি এ পরিচালক লেখেন, ‘মি টু আন্দোলন ও নারীর ক্ষমতায়নের প্রতি আমার জোরালো সমর্থন রয়েছে কিন্তু আশা করব যারা নিজেদের খ্যাতি বাড়ানোর জন্য এই আন্দোলনের সুবিধা নিচ্ছে তাদের জন্য এটি যেন দুর্বল না হয়ে যায়। যদি কেউ আমার সুনাম নষ্ট করতে চায় তাহলে খুব খারাপ লাগবে। এ বিষয়টি আমার আইনজীবী তাদরকি করবেন।’

এর আগে নাম ও পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নারী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেওয়া এক পোস্টে বলিউডের জনপ্রিয় এই চিত্র পরিচালকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তোলেন। যদিও তা অস্বীকার করেছেন সুভাষ ঘাই।

বিডি২৪লাইভ/আজ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: