প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

‘মোদি প্রধানমন্ত্রী হলে আমার বেলায় হিংসা কেন?’

১৬ নভেম্বর, ২০১৮ ১১:৫৬:০৬

ছবি: সংগৃহীত

বর্তমান সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি নাম বেশ আলোচিত। আর আলোচিত ব্যক্তিটি হচ্ছে বগুড়ার নায়ক হিরো আলম। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে মনোনয়ন ফরম কিনেছেন তিনি। আর এতেই চারদিকে শোরগোল পড়ে যায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এই তারকাকে নিয়ে চলছে বিদ্রুপপূর্ণ আলোচনা-সমালোচনা।

তবে এই বিদ্রুপ আলোচনা-সমালোচনাকে বিন্দুমাত্র আমোলে না নিয়ে উল্টো অনুপ্রেরণা হিসেবে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উদাহরণ টেনেছেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সব ব্যঙ্গকে উড়িয়ে দিয়ে তিনি বলেন, ‘চা-এর দোকানদার থেকে নরেন্দ্র মোদি ভারতের মতো একটি বড় দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। আমি সংসদ নির্বাচনে লড়াই করতে চাইলে হিংসা হয় কেন? আমি এদেশের নাগরিক। সুন্দর বাংলাদেশ গড়তে আমিও ভূমিকা রাখতে পারি।’

বর্তমানে তিনি নিজেকে একজন আন্তর্জাতিক তারকা হিসেবে মনে করেন। দেশের ছবিতে কাজ করার পাশাপাশি ডাক পেয়েছেন বলিউড এবং কলকাতার ছবিতেও।

তিনি বলেন, ‘ফেসবুকে আমার প্রায় সাড়ে তিন লাখ ফলোয়ার। অথচ আমাকে অনেকে ব্যঙ্গ করছেন।’

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘হিরো আলম জীবনে কারো কোনো ক্ষতি করেনি। মানুষকে কথা দিয়েছিলাম, আবার নির্বাচনে নামলে জাতীয় সংসদের ভোটে প্রার্থী হব। এ জন্যই মনোনয়ন ফরম কিনেছি। হিরো আলম কাউকে কোন কথা দিলে তা রাখে।’

হিরো আলম এক সময় বগুড়ায় সিডির ব্যবসা করতেন। এরপর ঢাকায় এসে শুরু করেন ডিস লাইনের ব্যবসা। পরবর্তীতে নিজের খরচে বেশ কিছু মিউজিক ভিডিও-শর্টফিল্ম বানিয়ে ফেসবুক ও ইউটিউবে আপলোড করে। এরপরই রাতারাতি দেশব্যাপী পরিচিত মুখে পরিণত হন তিনি। সুযোগ পান বাংলা চলচ্চিত্রে অভিনয় করার। এরপর ডাক পান বলিউড এবং কলকাতার ছবিতেও।

আর নিজের জনপ্রিয়তা বাড়ার পর তার এলাকায় মেম্বার প্রার্থী হয়ে একাধিকবার নির্বাচন করেন হিরো আলম। যদিও প্রতিবারই হেরেছেন তিনি। এবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। বগুড়া-৪ আসনের মনোনয়ন চেয়ে দলটির কেন্দ্রীয় কমিটিতে ফরম জমা দিয়েছেন জিরো থেকে হিরো হওয়া এ তারকা।

বিডি২৪লাইভ/এএইচ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: