দেশের সম্মান ও নিরাপত্তা সবার আগে: পাক সেনাপ্রধান

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ২৩:৩৬:৪৫

ছবি: ইন্টারনেট

পাকিস্তানের সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া বলেছেন, আফগনিস্তানে শান্তি প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে তার দেশ অবদান রাখবে তবে সবার আগে থাকবে দেশের সম্মান ও নিরাপত্তার প্রশ্ন। এ খবর দিয়েছে পার্সটুডে।

জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়ার বরাত দিয়ে পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আসিফ গফুর এক টুইটার বার্তায় একথা জানিয়েছেন। জেনারেল বাজওয়া আরো বলেছেন, “আঞ্চলিক শান্তি রক্ষার ক্ষেত্রে পাকিস্তান সফলতার সঙ্গে সন্ত্রাসবাদ-বিরোধী লড়াই করেছে। আফগানিস্তানে শান্তি প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে পাকিস্তান যেকোনো দেশের চেয়ে বেশি কিছু করেছে। আমরা সামরিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে সর্বোচ্চ মূল্য দিয়েছি।”

গত রোববার ফক্স নিউজ টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কিছু অভিযোগ তোলার পর জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া এসব কথা বললেন। ট্রাম্প বলেছেন, “২০১১ সালে মার্কিন সেনারা বিন লাদেনকে পাকিস্তানের ভেতরে হত্যা করে তবে এর আগে তার অবস্থান সম্পর্কে পাক সরকার জানতো। বিন লাদেন পাকিস্তানের একটি সামরিক একাডেমির পাশে সুন্দর একটি বাড়িতে বসবাস করছিলেন এবং সবাই জানত যে, বিন লাদেন সেখানে থাকে।” এছাড়া, পাকিস্তানকে যে সামরিক খাতে অর্থ সহায়তা দেয়া বন্ধ করেছে মার্কিন সরকার তার পক্ষেও সাফাই গেয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তার এ বক্তব্যের পর মার্কিন চার্জ দ্যা অ্যাফেয়ার্স পল জোন্সকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করেছে পাকিস্তান।

এছাড়া, ট্রাম্পের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান টুইটার বার্তায় বলেছেন, “৯/১১ হামলায় কোনো পাকিস্তানি জড়িত না থাকা সত্ত্বেও ইসলামাবাদ আমেরিকার সন্ত্রাস-বিরোধী যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে। এই যুদ্ধে ৭৫ হাজার পাকিস্তানি নিহত হয়েছে এবং দেশটির আর্থিক ক্ষতি হয়েছে ১২৩ বিলিয়ন ডলার। অথচ আমেরিকা কথিত সাহায্য দিয়েছে মাত্র ২০ বিলিয়ন ডলার।”

বিডি২৪লাইভ/এমআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: