সম্পাদনা: শাহরিয়ার আলম

ডেস্ক এডিটর

বন্ধুকে হত্যার পর ২০০ টুকরা! অতঃপর...

২৪ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৬:১৩:২১

ছবি: ইন্টারনেট

সম্প্রতি ভারতে মুম্বাইয়ে ঘটে যাওয়া এ ঘটনা নিয়ে বেশ চাঞ্চল্যকর অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। শুধু খুনই নয়! এর পর মৃতদেহ কেটে ২০০ টুকরা করার পর তা কমোডে ফেলে ফ্লাশও করা হয়। শরীরের মাংস থেকে হাড় আলাদা করে তা ফেলে দেওয়া হয় ট্রেনের বাহিরে।

ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রায় এক লক্ষ টাকার উপর ঋণ বকেয়া ছিল বিহারের বাসিন্দা গণেশ ভিত্তাল কোলহাৎকরের। কিছুতেই তার বন্ধুকে সেই ধার শোধ করছিলেন না তিনি। তাই তার বন্ধু পিন্টু শর্মা তাকে খুন করে।

এদিকে পুলিশ বলছে, ঘটনাটি সুপরিকল্পিতভাবেই ঘটানো হয়েছে। অভিযুক্ত পিন্টু কোলহাৎকরকে বাড়িতে নিমন্ত্রণ করেন গত ১৬ জানুয়ারি। এর পর মদ্যপান করেন। মদ্যপানের পরই বকেয়া ঋণ নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয় তাদের দুইজনের মধ্যে।

ঝগড়ার এক পর্যায়ে গণেশকে খুন করার পরেই তার দেহ লোপাটের ছক কষে ফেলে পিন্টু। খুনের পর সেই মৃত গণেশের দেহ প্রায় ২০০ টুকরা করে কমোডে ফ্লাশ করে দেন তিনি। বেশ কয়েক দিন ধরে তিনি কমোডে ওই ব্যক্তির শরীরের নানা অংশ ফ্লাশে তার বন্ধুর দেহ লোপাটের চেষ্টা করেছিলেন।

পুলিশ আরও জানিয়েছে, নৃশংস এই ঘটনায় পিন্টু একটুও বিচলিত হননি। বরং শরীর থেকে মাংস ও হাড় আলাদা করেছেন। ট্রেন থেকে সেই ব্যক্তির হাড়ের অংশ ছুড়েও ফেলে দিয়েছিলেন তার পর। কিন্তু কয়েকদিন পর ওই আবাসনের নিকাশি ব্যবস্থায় সমস্যা দেখা দেওয়ায় শ্রমিকদের ডাকা হয়, তখনই ঘটনাটি জানাজানি হয়।

অভিযুক্ত পিন্টুকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ভাকোলার বাসিন্দা পিন্টু একটি ছাপাখানার ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত। এ ছাড়াও মুম্বাইয়ের শেয়ার বাজারের একজন বিনিয়োগকারী তিনি।

বিডি২৪লাইভ/এসএ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: