বন্দুকধারীর পাশে থেকেও যেভাবে বেঁচে যান আনোয়ার!

১৫ মার্চ, ২০১৯ ১৭:৪৮:৫৬

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হ্যাগলি ওভাল মাঠের খুব কাছের একটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়েরা ওই মাঠে অনুশীলনে করছিলেন। অনুশীলন শেষে তারা মসজিদটিতে জুমার নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন। তবে তারা মসজিদে প্রবেশের আগেই এই হামলার ঘটনা ঘটায় অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড জানিয়েছে, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে শুক্রবার জুমার নামাজের সময় বন্দুকধারীর হামলায় অন্তত ৪৯ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এদিকে এ হামলা থেকে অল্পের জন্য বেঁচে যান আনোয়ার আলসালেহ। আজ জুমার নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আল নূর মসজিদে। ছোট একটি কক্ষে যখন তিনি ওজু করছিলেন তখন হঠাৎ গুলির শব্দ শুনতে পান। তার ওই ঘরের পাশ দিয়েই হেঁটে যাচ্ছিলেন বন্দুকধারী। তখন তিনি নিজেকে আড়াল করেন। ওই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪৯ জন মারা গেলেও ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান তিনি।

পাকিস্তানের নাগরিক আনোয়ার আলসালেহ ১৯৯৬ সাল থেকে নিউজিল্যান্ডে বসবাস করছেন। আজ মসজিদ হামলার সময় ওজুর কক্ষ থেকেই মুঠোফোনে স্থানীয় পুলিশের কাছে একাধিকারবার ফোন করেন। কিন্তু তার ফোন কেউ ধরেনি। টানা গুলিবর্ষণের সময় তিনি অ্যাম্বুলেন্সে ফোন করেন। ফোনে তিনি জানান, মসজিদে বন্দুকধারীর হামলায় অনেকজন নিহত হয়েছেন।

এ সময় বন্দুকধারীর একটি কথা কানে আসে আনোয়ারের। বন্দুকধারী বলতে থাকেন, ‘আমি আজ মুসলিমদের মারতে এসেছি।’

আনোয়ার বলেন, ঘটনা শুরুর প্রায় ২০ মিনিট পর পুলিশ সেখানে উপস্থিত হয়। তখন তিনি মসজিদের ভেতর অনেকগুলো লাশ পড়ে থাকতে দেখেন, তাদের মধ্যে নারি ও শিশুর লাশও ছিল।

ভালোভাবে থাকার জন্যই ১৯৯৬ সালে পাকিস্তান থেকে নিউল্যান্ডে যান আনোয়ার আলসালেহ। এরপর থেকে তিনি সেখানেই অবস্থান করছেন। তিনি বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডের মানুষরা খুব ভালো। এখানে আমার অনেক বন্ধু রয়েছে।’

বিডি২৪লাইভ/আরআই

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: