প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

ধর্মঘটে শিক্ষকদের দাবি, ‘উই ওয়ান্ট এমপিও’

২৩ মার্চ, ২০১৯ ১৫:৩৬:২৯

ছবি: ইন্টারনেট

শিক্ষাই যদি জাতির মেরুদন্ড হয়, তবে কেন শিক্ষকদের প্রতি রাষ্ট্রের অবহেলা। আমার সন্তানকে কেন আন্দোলনে বলতে হয় , আমার মায়ের টাকা ছাড়া বাড়ি ফিরবো না।একষ্ট রাখি কোথায়? শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমপিও ভুক্তির দাবিতে আজও তাদের কষ্টের কথা তুলে ধরলেন শিক্ষক শামুসর রহমান।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবিতে চার দিন ধরে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে টানা অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষক-কর্মচারীরা। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

শনিবার (২৩ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে গিয়ে দেখা যায়, প্রচণ্ড গরম উপেক্ষা করে রাস্তায় বসে আছেন শিক্ষকরা। দাবি আদায়ে বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছেন তারা।

শিক্ষক নেতারা বলছেন, নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের দাবি বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে শিক্ষামন্ত্রী যদি সুনির্দিষ্ট আশ্বাস দেন, তাহলে আন্দোলন ছেড়ে ক্লাসে ফিরবেন শিক্ষকরা। অন্যথায় অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন তারা।

শুক্রবার (২২ মার্চ) এমপিওভুক্তির আশ্বাস বাস্তবায়নের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে চান আন্দোলনরত নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা।

নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক বিনয় ভূষণ রায় গণমাধ্যমকে জানান, এক বছর আগে প্রধানমন্ত্রী আমাদের দাবি বাস্তবায়নের আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু সেই আশ্বাস আজও বাস্তবায়ন করা হয়নি। এ দাবিতে আমরা টানা চারদিন ধরে রাজপথে বসে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, শুক্রবার দুপুরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসাইন আমাদের সঙ্গে আলোচনা করতে অফির্সাস ক্লাবে ডাকেন। তার সঙ্গে স্বাক্ষাৎ করতে কেন্দ্রীয় কমিটির ১৫ জন প্রতিনিধি যাই। এ সময় সচিব আমাদের বাড়ি ফিরে যেতে আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, আগামী মাসে নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির ঘোষণা দেয়া হবে।

‘এ প্রতিশ্রুতি দিয়ে আমাদের বাড়ি ফিরে যেতে বললেও আমরা তাতে সন্তুষ্ট নই। আমাদের দাবি আদায়ে ৩০ দফায় পদযাত্রা ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করে শুধু আশ্বাস ছাড়া আর কিছু পাইনি। এ কারণে আমরা সচিবের আহ্বানে সন্তুষ্ট নই।’

বিনয় ভূষণ রায় বলেন, সারাদেশে ৫ হাজার ২৪২টি প্রতিষ্ঠান একসঙ্গে এমপিওভুক্তি করতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে আমাদের দাবি বাস্তবায়নের সুনির্দিষ্ট দিনসময় ঘোষণা করা হলে আমরা আন্দোলন ছেড়ে ক্লাসে ফিরে যাব।

প্রসঙ্গত, গত ২০ মার্চ থেকে সারা দেশের পাঁচ হাজারের বেশি নন-এমপিও প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারী জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান করছেন। কিন্তু এখনো সরকারের পক্ষ থেকে কোনো সাড়া পাননি তারা।

বিডি২৪লাইভ/এসবি/এসএ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: