প্রচ্ছদ / আইন ও আদালত / বিস্তারিত

ভিপি নুরসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবেদন ২১ মে

প্রকাশিত: ০৩:১৬ অপরাহ্ণ, ১৭ এপ্রিল ২০১৯

ছবি: ইন্টারনেট

অক্সফোর্ড নামে খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের দিনে রোকেয়া হলের প্রভোস্ট জিনাত হুদাকে লাঞ্ছিত ও ভাঙচুরের অভিযোগে ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর, লিটন নন্দীসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২১ মে দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। তবে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনছারী নতুন এ দিন ধার্য করেন।

এর আগে ১১ মার্চ আসামিরা ডাকসু নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলাকালে হেরে যাওয়ার ভয়ে পরস্পর যোগ সাজসে ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ বানচাল করার জন্য অজ্ঞাত ৩০/৪০ জন ছাত্র-ছাত্রী একত্র হয়ে গুজব সৃষ্টি করে। এদিন রাতে ঢাবির নৃত্যকলা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মারজুকা রায়না শাহবাগ থানায় নুরসহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন। এতে অজ্ঞাত পরিচয় ৩০-৪০ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার আসামিরা হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর এবং ভিপি প্রার্থী লিটন নন্দী, জিএস প্রার্থী ঢাবির জহুরুল হক হল ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক খন্দকার আনিসুর রহমান, জিএস প্রার্থী ছাত্র ফেডারেশনের ঢাবি শাখার সভাপতি উম্মে হাবীবা বেনজীর ও রোকেয়া হল সংসদের স্বতন্ত্র ভিপি প্রার্থী শেখ মৌসুমী।

এদিকে একপর্যায়ে হল প্রভোস্ট ড. জিনাত হুদা শিক্ষার্থীদের আশ্বস্ত করে বলেন, সংরক্ষিত ব্যালট পেপারগুলো সাদা। কিন্তু অভিযুক্তরা প্রভোস্টের কথা না শুনে তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন এবং শিক্ষার্থীদের গালাগাল করেন। এ সময় তারা সেখানে ভাঙচুরও চালান।

বিডি২৪লাইভ/এসএএস

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: